আজ ৮ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২২শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

মাওলানা মামুনুল হক। ছবি: সংগৃহীত

মুক্তি পেলেন না মাওলানা মামুনুল হক

অনলাইন ডেস্ক

কারামুক্তির নানা গুঞ্জন শোনা গেলেও শেষ পর্যন্ত মুক্তি পাননি হেফাজতে ইসলামের বিলুপ্ত কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম-মহাসচিব এবং ঢাকা মহানগরীর সাধারণ সম্পাদক মাওলানা মামুনুল হক। রাতে মুক্তি পাবেন এমন খবরে গাজীপুরের কাশিমপুর কারাগারের সামনে সমবেত হন হাজার হাজার মানুষ। রাত ১২টা বেজে গেলেও তাদেরকে কারাগারের প্রধান ফটকের সামনে অপেক্ষা করতে দেখা যায়। বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১১টায় মামুনুল হকের ছেলে যিমামুল হক এবং তার ভাগিনা ইহসান হক মাওলানা মামুনুল হক কাশিমপুর কারাগার থেকে বের হননি বলে জানান।

এর আগে, রাত সাড়ে ১০টায় কাশিমপুর হাই সিকিউরিটি কেন্দ্রীয় কারাগারের সিনিয়র জেল সুপার সুব্রত কুমার বালা জানান, মাওলানা মামুনুল হক এ কারাগারে দীর্ঘদিন যাবত বন্দী হিসেবে আছেন। ২০২১ সালের ১৮ এপ্রিল নারায়ণগঞ্জের একটি রিসোর্ট থেকে মাওলানা মামুনুল হক গ্রেপ্তারে হন। এ যাবত তার বিরুদ্ধে ৩০টি মামলা রয়েছে। বর্তমানে তিনি কাশিমপুর হাই সিকিউরিটি কেন্দ্রিয় কারাগারে রয়েছেন। সর্বশেষ মামলায় গত রোববার চট্টগ্রামের সিএমএম আদালতে তার জামিন হয়। বৃহস্পতিবার বিকেলে আদালত থেকে তার জামিনের কাগজপত্র আমাদের হাতে এসেছে।

অনেকগুলো মামলা থাকায় জামিনের কাগজপত্র যাচাই বাছাই করা হচ্ছে। যাচাই বাছাই শেষে তাকে মুক্তি দেওয়া হবে। তবে আজ তার মুক্তি পাওয়া সম্ভব হবে না। তিনি নিশ্চিত করে বলেন, আজ রাতে মুক্তি পাচ্ছেন না তিনি।

এর আগে গত ১১ মার্চ মামুনুল হকের মুক্তির বিষয়ে আলোচনা করতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের সঙ্গে বৈঠক করেন হেফাজত নেতারা। ধর্মমন্ত্রী ফরিদুল হক খানসহ সরকারের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা বৈঠকে অংশ নেন। বৈঠক শেষে গণমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে সংগঠনটির মহাসচিব মাওলানা সাজিদুর রহমান দাবি করেন, ‘মামুনুল হকের মুক্তির বিষয়ে সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।’

এদিকে, গত ২৪ এপ্রিল তিন মামলায় জামিন পান মামুনুল হক। এ বিষয়ে মামুনুল হকের আইনজীবী আব্দুস সালাম হিমেল বলেন, ২০১৩ সালের মতিঝিল থানার এক মামলায় ও ২০২১ সালের পল্টন থানার দুই মামলায় জামিন পেয়েছেন মামুনুল হক। তার বিরুদ্ধে ঢাকায় ও ঢাকার বাইরে একাধিক মামলা রয়েছে। ওইসব মামলায় জামিন পেলে তিনি কারামুক্ত হতে পারবেন।

এর আগে গত ৪ এপ্রিল নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ থানায় দায়ের করা ধর্ষণ মামলায় জামিন পান মামুনুল হক। এ ছাড়া গত ৫ ফেব্রুয়ারিতে আরও দুই মামলায় জামিন পান তিনি। তার আগে ২০২৩ সালের ৩ মে পাঁচ মামলায় হাইকোর্ট থেকে স্থায়ী জামিন পান মামুনুল হক। গণমাধ্যমে প্রাপ্ত তথ্যানুসারে সব মিলিয়ে বর্তমানে অন্তত ১১টি মামলায় জামিনে আছে হেফাজতের এ নেতা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর